করোনায় কপাল পুড়েছে ফুটপাতের ব্যবসায়ীদের

বিজে২৪নিউজ:

মাস খানেক হলো ব্যবসা শিঁকেয় উঠেছে নোয়াখালীর ফুটপাতের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের। মহামারি করোনার বিস্তার ও প্রভাব প্রতিরোধে সরকার ফুটপাতের ব্যবসায়ীসহ সকল দোকানপাট বন্ধ করে দেয়। পরবর্তীতে অন্যান্য দোকানপাট সাময়িক খোলা থাকলেও পুরোপুরো বন্ধ রয়েছে ফুটপাতের দোকানগুলো। ফলে পরিবার পরিজন নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে দিন যাপন করছেন এসব দোকান মালিকরা।

মহামারি করোনা দেশে ছড়িয়ে পড়ার পর খাবার, কাঁচামাল ও ওষুধের দোকান ছাড়া সব দোকানপাট বন্ধ করে দেয়া হয়। কপাল পোড়ে চায়ের দোকানসহ ফুটপাতের কারিগরদের। বিপাকে পড়েন তারা। দোকান খুলতে না পারায় তাদের চুলাও আর জ্বলে না।

ফুটপাতের কারিগর বজলুর রহমান জানান, নিজস্ব দোকান নেই তাই রাস্তার পাশে চট বিছিয়ে ছাতা, টর্চলাইট মেরামত ছাড়াও নষ্ট তালা চাবি মেরামত করতেন। এখান থেকে যে আয় হতো তা দিয়ে সংসার চলতো। এখন মহামারীর কারণে ফুটপাতের ব্যবসাটি বন্ধ হয়ে গেছে। একই কথা জানালেন চায়ের দোকানি রফিকুল ইসলাম, জেনারুল ও মোখলেছ।

প্রশাসন থেকে জানানো হয়, পরিবেশ পরিস্থিতির কারণে দোকান বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। তাদেরকে সহযোগিতা করা হয়েছে এবং এটি অব্যাহত থাকবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে দোকান খোলার অনুমতি দেয়া হবে। সকলের প্রচেষ্টায় করোনা মোকাবেলা করতে হবে।

নোয়াখালী,লক্ষ্মীপুর,ফেনী জেলার সমন্বয়ে গঠিত একটি অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন