টপ লাইন : আগের চাইতে জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে ফেইসবুক কোম্পানী বিতর্কিত কিছু কাজ ফেইসবুক কোম্পানী কে গ্রাহকদের সমালোচনার মুখে ফেলছে। ফলে কমছে আয়।

 

বিজে২৪ নিউজ :

সময়টা খুব খারাপ যাচ্ছে ফেসবুকের। একের পর এক বিতর্কিত কাজ এবং সেগুলো নিয়ে গ্রাহকদের তীব্র সমালোচনায় কিছুটা কোণঠাসা হয়ে পড়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি।ফেসবুকের এসব বিতর্ক প্রভাব ফেলেছে আয়ের ক্ষেত্রেও।

প্রতিষ্ঠানটি চলতি বছরের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে (এপ্রিল-জুন) আয়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে পারেনি। এমনকি পূরণ করতে পারেনি ওয়াল স্ট্রিট বিশ্লেষকদের আয়ের প্রত্যাশাও।অন্যদিকে আগের চেয়ে নতুন ব্যবহারকারী তুলনামূলকভাবে কম পাচ্ছে ফেসবুক।

 

এছাড়া তাদের আয়ের ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জায়গা যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা এবং ইউরোপে জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে। ফলে আয় কমছে প্রতিষ্ঠানটির।জানা গেছে, জুলাই ত্রৈমাসিকে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও ইউরোপের প্রত্যেক ব্যবহারকারী থেকে ফেসবুক আয় করে প্রায় ২৬ ডলার।

 

যেখানে এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে এই হার মাত্র ২ দশমিক ৬২ ডলার এবং দক্ষিণ আমেরিকা ও আফ্রিকায় ১ দশমিক ৯১ ডলার।অর্থাৎ ফেসবুকের আয়ের বেশিরভাগই আগে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও ইউরোপ থেকে। কিন্তু এখানকার গ্রাহকদের ফেসবুকের প্রতি আস্থা কমে যাওয়ায় বছরের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে এর স্টক ২০ শতাংশেরও বেশি কমে যায় যা এখনও পর্যন্ত স্বাভাবিক অবস্থায় আসেনি।

 

আজ (মঙ্গলবার) অথবা কাল তৃতীয় ত্রৈমাসিকের আয় ঘোষণা করবে প্রতিষ্ঠানটি। এতে পরিষ্কার হবে সব হিসাব-নিকাশ।আয় কমলেও ফেসবুক খুব বেশি বিপদে পড়বে না বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ, ফেসবুকের মালিকানায় পরিচালিত হয় হোয়াটসঅ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম ও মেসেঞ্জার। এই তিনটি প্লাটফর্মের জনপ্রিয়তা ক্রমেই বাড়ছে। আর সেখান থেকে আসা আয় দিয়ে সহজেই ফেসবুকের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবে কর্তৃপক্ষ।