আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

নির্বাচনী বিধিমালা লঙ্ঘনের ঘটনায় পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশনের (ইসিপি) কাছে ক্ষমা চেয়েছেন দেশটির হবু প্রধানমন্ত্রী ও পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের(পিটিআই) চেয়ারম্যান ইমরান খান।

শুক্রবার (১০ আগস্ট) তার লিখিত ক্ষমার আবেদন গ্রহণ করে অভিযোগ তুলে নেয়ার কথা জানান প্রধান নির্বাচন কমিশনার সরদার মুহাম্মদ রাজা।

গত ২৫ জুলাই অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে ইসলামাবাদের একটি ভোটকেন্দ্রে প্রকাশ্যে তার ব্যালট পেপারে সিল মারেন পিটিআই চেয়ারম্যান।

এই ঘটনায় প্রধান নির্বাচন কমিশনারের নেতৃত্বে গঠিত চার সদস্যের একটি বেঞ্চে গতকাল বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) ইমরানের বিরুদ্ধে ব্যালট গোপনীয়তা লঙ্ঘন সংক্রান্ত অভিযোগের শুনানিতে তার পক্ষে লিখিত জবাব দেন আইনজীবী বাবর আওয়ান।

এতে বলা হয়, ইমরান ইচ্ছাকৃতভাবে তার ভোটটি দেখাননি এবং ব্যালট পেপারের ছবিটি তার সম্মতিতে তোলা হয়নি। মানুষের ভিড়ে ভোটিং স্ক্রিন নিচে পড়ে যায়। তখন ইমরান কী করবেন তা জানতে চান। তখন তাকে যা বলা হয় তিনি তাই করেন।

কিন্তু নির্বাচন কমিশন পিটিআই চেয়ারম্যানের লিখিত জবাবটি প্রত্যাখ্যান করে এবং তাকে লিখিতভাবে ক্ষমা চাইতে বলে। শুনানিটি শুক্রবার পর্যন্ত মুলতবি ঘোষণা করা হয়।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইমরান খানের শপথ গ্রহণের তারিখ আবারও পিছিয়েছে। শুরুতে ১১ আগস্ট শপথ নেয়ার কথা থাকলেও তিন দফা পিছিয়ে নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ১৮ আগস্ট।