নোয়াখালীর ধর্ষিত সেই এতিম শিশুর দায়িত্ব নিলেন নিরাপদ নোয়াখালী চাই এর সিনথিয়া

বিজে২৪ নিউজ:

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের ৬নং রাজগঞ্জ ইউনিয়নের ধর্ষিত এতিম শিশুর সারাজীবনের ভরণপোষন,লিখাপড়া ও বিয়ের দায়িত্ব নিলেন বৃহত্তর নোয়াখালীর সর্ববৃহৎ জনপ্রিয় সংগঠন “নিরাপদ নোয়াখালী চাই”এর সদর উপজেলা শাখার সমন্বয়ক মাহমুদা ফেরদাউস সিনথিয়া ।

যিনি পেশায় একজন নারী উদ্যোক্তা, সমাজ সেবিকা ও নিরাপদ নোয়াখালী চাই এর “সদর উপজেলা শাখার” সমন্বয়ক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন মানবতার কল্যাণে।

সিনথিয়া হাসান সদর উপজেলার ৫নং বিনোদপুর ইউনিয়নের জালিয়াল গ্রামের মৌলভী মন্তাজুল করিম সাহেব বাড়ীর আবু বকর সিদ্দিক মিয়ার প্রথমা কণ্যা সন্তান।

তিনি প্রতিমাসে ধর্ষিতা শিশুর লিখাপড়া,ভরনপোষণ বাবত তার পরিবারের ব্যাংক এ্যাকাউন্টে ৩০০০(তিনহাজার টাকা) দিবেন বলে ধর্ষিতার পরিবার-কে আশ্বস্ত করেন। এবং ভবিষ্যতে শিশুটির বিয়ের সম্পূর্ণ খরচ বহন করার কথাও দেন।

এই বিষয়ে বিবিসি জার্নাল টোয়েন্টিফোর ডটকম এর সাথে কথা হয় “নিরাপদ নোয়াখালী চাই এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুর রহমান রাসেলের সাথে,যিনি ধর্ষিতা শিশু গুলোর চিকিৎসার প্রথম দিন থেকেই নিরাপদ নোয়াখালী চাই এর ৭সদস্যের একটি টিম নিয়ে শিশু গুলোর সার্বিক সহযোগিতায় পাশে ছিলেন।

তিনি বলেন,দুটি শিশুই খুব অসহায়, ৭বছরের যে শিশুটি সে এতিম,বাবা নেই,মা আছেন যিনি মানুষের বাসায় কাজ করেন,অপর টি প্রতিবন্ধী, দুটি শিশুর সাথে যা হয়েছে তা অত্যন্ত নৃশংস ও বর্বর, আমার মনে হয়েছে ঠিক এ সময় শিশু ও শিশুর পরিবারের পাশে থাকা আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য, সেই নৈতিক সামাজিক দায়বদ্ধতা ও দায়িত্বশীলতা থেকেই ২৪ঘন্টার মধ্যে ধর্ষকদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছি, অপারেশনের জন্য আমার টিম রক্ত ম্যানেজ করে দিয়েছে, দুজনের মধ্যে একজনের সারাজীবনের ভরনপোষনের ব্যবস্থা করে দিয়েছি,বাকী রয়েছে প্রতিবন্ধী শিশুটি মহান আল্লাহ চাইলে তারও একটি ব্যবস্থা হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।

উলেখ্য গত ২৯শে জানুয়ারী নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলা ও সুবর্ণচর উপজেলায় পৃথকভাবে দুটি শিশু ধর্ষিত হয়েছে,যাদের দুজনই এখন নোয়াখালীর জেনারেল হাসপাতালে পাশাপাশি বেডে চিকিৎসাধীন।