নোয়াখালীতেও করোনা সনাক্তকরণ টেস্ট করা সম্ভব: স্বাচিপ সভাপতি ফজলে এলাহি

বিজে২৪ডটকম:

নোয়াখালীতেও করোনা ভাইরাস সনাক্তকরণ টেস্ট করা সম্ভব এমন কথাই বললেন স্বাচিপ (স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ) সভাপতি ও আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ও নেফ্রোলজি বিভাগীয় প্রধান ডা.ফজলে এলাহি খাঁন।

বৃহত্তর নোয়াখালী (নোয়াখালী,লক্ষ্মীপুর,ফেনী) একটি প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকা। দেশের অন্যান্য জেলার তুলনায় এ অঞ্চলে প্রবাসীর সংখ্যা অনেক বেশী। বিভিন্ন দেশ থেকে অনেক প্রবাসীরা নিজ এলাকায় এসেছেন। এদের মধ্যে এমন কেউ থাকতে পারে যারা হয়তো করোনার জীবানু বহন করছে।

এমতাবস্থায় এই ভাইরাসের যেহেতু এখনো কোনো প্রতিষেধক তৈরী হয়নি, সেহেতু নিয়ম মেনে চলা আর প্রতিরোধ গড়ে তোলাই এর অন্যতম উপায় বলে মনে করেন বিজ্ঞজনেরা।

অপরদিকে খুবই স্বল্প সময়ের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় দেশের ১৭টি প্রতিষ্ঠানে ভাইরাস পরীক্ষা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।

এরই ধারাবহিকতায় স্বাচিপ সভাপতি মনে করেন যে, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি এবং rt-PCR মেশিন ও কিট সরবরাহ করা হলে নোয়াখালী আব্দুল_মালেক_উকিল_মেডিকেল_কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের অত্যাধুনিক ল্যাবে এই পরীক্ষা করা সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, এই পরীক্ষাটি করার জন্য
প্রয়োজনীয়_অনেক যন্ত্রানাংশই আমাদের রয়েছে। তাছাড়া এই বিভাগে আমাদের ৩ জন সহকারী অধ্যাপক, ২জন প্রভাষক ও ২ জন প্রশিক্ষিত বিএসসি মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট রয়েছে।

এমতাবস্থায়, বৃহত্তর নোয়াখালীর চাঁদপুর, কুমিল্লার দক্ষিন অঞ্চলের রোগী বা সন্দেহ ভাজনদের জন্যে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার কেন্দ্র হিসেবে
নোয়াখালী আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল
কলেজকে ব্যবহারের লক্ষ্যে নোয়াখালীর সন্তান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী_ ওবায়দুল_কাদের, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক স্বপন,
নোয়াখালী-০৪ আসনের সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী, স্থানীয় সাংসদ মামুনুর রশিদ কিরন, জেলা প্রশাসক তন্ময় দাসের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন স্বাচিপ সভাপতি ও  সম্মিলিত নোয়াখালীবাসী ।