আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার পাঁচটি দেশের ১৩২ জনের বেশি এমপি আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) মিয়ানমারের বিরুদ্ধে তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। এক বছর আগে রাখাইনের রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর যে সহিংসতা চালানো হয়েছে তার পেছনে মিয়ানমারের দায়ী ব্যক্তিদের বিচারের মুখোমুখি করার দাবি জানানো হয়।

এক যৌথ বিবৃতিতে আসিয়ানের পার্লামেন্টের সদস্যরা বলেছেন, রাখাইনে রোহিঙ্গাসহ অন্যান্য সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর ওপর মানবাধিকার লঙ্ঘন বন্ধ করতে দেশটির সেনাবাহিনীকে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে।

ওই এমপিরা ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন, সিঙ্গাপুরের পার্লামেন্ট সমস্য। ১৩২ এমপির পক্ষে এপিএইচআরের সদস্য চার্লস সান্তিয়াগো বলেন, যেহেতু মিয়ানমার নিজেরা বিষয়টির তদন্ত করতে অনিচ্ছুক এবং অপারগ, সেহেতু আমরা এমন একটি পর্যায়ে আছি যেখানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কেই জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আমি আমার ১৩১ সহকর্মীর সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে অতিদ্রুত এ বিষয়ে মিয়ানমারকে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে বিচারের মুখোমুখি করতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। এ ধরনের জঘন্য অপরাধের সঙ্গে মিয়ানমারের যারা যুক্ত ছিলেন তাদের অবশ্যই বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। ভবিষ্যতে তারা যেন আবারও এমন অপরাধ করতে না পারে সেজন্য তাদের ছেড়ে দেয়া যাবে না।

রাখাইনে গত বছরের আগস্টে সেনাবাহিনীর অভিযানে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। অভিযানের নামে সেখানে রোহিঙ্গাদের হত্যা, ধর্ষণ এবং নির্যাতন চালিয়েছে সেনাবাহিনী। রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমারের এই বর্বর আচরণকে জাতিগত নিধন বলে উল্লেখ করেছে জাতিসংঘ। কিন্তু রোহিঙ্গাদের হত্যা, নির্যাতন এবং নিপীড়নের অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছে মিয়ানমার।