স্পোর্টস ডেস্ক :

রাজনৈতিক টানাপোড়েনের কারণে পাক-ভারত দ্বৈরথ দেখা থেকে বঞ্চিত ক্রিকেট বিশ্ব। এই দুই দলের মহারণ দেখার জন্য সারা বছর অপেক্ষায় থাকে গোটা বিশ্বের ক্রিকেটপ্রেমীরা। অবশেষে আজ সেই অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে মাঠে নামছে দু’দল। সবশেষ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল দু’দল।

সেবার ফখর জামানের সেঞ্চুরি, হাসান আলী ও মোহাম্মদ আমিরের বোলিং তোপে পড়ে ১৮০ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হয়। সেই চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনাল ম্যাচে পর আজ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের মঞ্চে দেখা হবে দুই দলের। দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে পাঁচটায়। ম্যাচটি সরাসরি দেখাবে মাছরাঙা টেলিভিশন, স্টার স্পোর্টস ওয়ান, স্টার স্পোর্টস সিলেক্ট ওয়ান।

আজকের ম্যাচে মাঠে নামার আগে দুই দলের পরিসংখ্যানের হিসেবে অনেক এগিয়ে পাকিস্তান। কিন্তু দলগত পারফরম্যান্সে এগিয়ে রয়েছে ভারত। অবশ্য এ দু’দলের দ্বৈরথে এ সকল হিসেব-নিকেষ কোনও কিছুরই ধারধারে না। মাঠের পারফরম্যান্সে যে এগিয়ে থাকবে সেই জয়ী হবে।

এ দু’দলের দ্বৈরথ শুরু হয় ১৯৭৮ সালে পাকিস্তানের বেলুচিস্তান আইয়ুব জাতীয় স্টেডিয়ামে। এরপর থেকে দু’দল ১২৯টি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে। প্রথম দেখায় কিন্তু জয়ী হয়েছিল সফরকারী ভারত। সেদিন ম্যাচসেরা হয়েছিলেন মহিন্দর অমরনাথ।অন্যদিকে আজকের ম্যাচের আগে শেষ ম্যাচে জয়ী হয়েছিল পাকিস্তান। সেদিন ম্যাচসেরা হয়েছিলেন পাকিস্তানের নতুন রিক্রুট ফখর জামান। যিনি ছিলেন একজন সমুদ্রচারী।

আসুন দেখে নেই দু’দলের পরিসংখ্যান কী বলে?

  • এশিয়া কাপে এর আগে ১১ বার মুখোমুখি হয়েছে পাকিস্তান-ভারত। উভয় দলই সমান ৫টি করে ম্যাচ জিতেছে, ড্র হয়েছে ১টি ম্যাচ।
  • পক্ষান্তরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২৯টি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে পাকিস্তান ভারত। যার মধ্যে ৫২টি ম্যাচে জয় পেয়েছে ভারত আর ৭৩টি ম্যাচে জয় পেয়েছে পাকিস্তান। ৪টি ম্যাচের ফলাফল হয়নি।
  • এশিয়া কাপের ১৪টি আসরের মধ্যে সর্বোচ্চ পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ভারত। আর পাকিস্তান দুইবারের চ্যাম্পিয়ন।
  • দুই দলের মধ্যে ভারতের সর্বোচ্চ দলীয় রান ৩৫৬/৯। আর পাকিস্তানের সর্বোচ্চ দলীয় রান ৩৪৪।
  • ভারতের সর্বনিম্ন রান ৭৯ রান। পাকিস্তানের সর্বনিম্ন রান ৮৭।
  • ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের মালিক ভারতের শচীন টেন্ডুলকার ২৪২৬ রান। পাকিস্তানের পক্ষে ইনজামাম-উল-হক ২৪০৩ রান।
  • পাক-ভারত লড়াইয়ে সর্বোচ্চ ৫টি করে সেঞ্চুরির মালিক শচীন টেন্ডুলকার ও সালমান বাট।
  • দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে সর্বাধিক উইকেট ওয়াসিম আকরামের। তিনি ৬০টি উইকেট লাভ করেন।