বিজে২৪ নিউজ :

ভারতের উত্তরপ্রদেশে একটি এক্সপ্রেস ট্রেন আংশিকভাবে লাইনচ্যুত হলে কমপক্ষে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, নিউ ফারাক্কা এক্সপ্রেসের বগি লাইনচ্যুত হয়ে আরও অন্তত ৩৫ জন আহত হয়েছেন। খবর আল-জাজিরা, পার্সটুডের।

উত্তরপ্রদেশের রাজধানী লক্ষ্ণৌ থেকে ৮০ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে রায়বেরেলি রেলওয়ে স্টেশনে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। ওই ট্রেনটি পশ্চিমবঙ্গের মালদহ টাউন স্টেশন থেকে দিল্লি যাচ্ছিল।

উত্তরপ্রদেশ পুলিশের মহাপরিচালক ওপি সিং বলেছেন, বুধবার স্থানীয় সময় ভোর ৫টা ৩০ মিনিটে ট্রেনের ইঞ্জিন ও পাঁচটি বগি লাইনচ্যুত হয়। ওই ঘটনার পর দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায় উদ্ধারকারীরা।

পুলিশের এই শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, আহত অবস্থায় অন্তত ৩৫ জনকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে নয়জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানতে পেরেছি।

ওই দুর্ঘটনায় অনেক যাত্রী আটকা পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। উদ্ধারকর্মীরা তাদের বের করে আনতে কাজ করে যাচ্ছে। দুর্ঘটনার কারণে ওই লাইনের ওপর সব ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

স্থানীয় খবরে বলা হয়েছে, আজ দুপুর ২টা ৩০ মিনিটের কিছুক্ষণ পর ট্রেনটি দিল্লি পৌঁছানোর কথা ছিল।

জানা গেছে, ট্রেনটি স্টেশন জোনে প্রবেশের পরই সেটি দুর্ঘটনায় পড়ে। তবে কী কারণে এই ট্রেন দুর্ঘটনা ঘটেছে সেটি স্পষ্ট নয়।

এদিকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী এই ঘটনায় দুঃখ ও শোক প্রকাশ করেছেন।

উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর পক্ষ থেকে নিহতদের পরিবারকে দুই লাখ ও আহতদের পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া কেন্দ্রীয় রেল মন্ত্রণালয় নিহতদের পরিবারকে পাঁচ লাখ ও গুরুতর আহতদের পরিবারকে এক লাখ এবং সামান্য আহতদের ৫০ হাজার টাকা করে দেয়ার কথা ঘোষণা করেছে।

অন্যদিকে কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল এই দুর্ঘটনার বিষয়ে উচ্চপর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। দুর্ঘটনার নেপথ্যে কোনও নাশকতা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের সন্ত্রাসদমন শাখার সদস্যরা ঘটনাস্থলে গেছেন।

উল্লেখ্য, ভারতে রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত রেলওয়ে ব্যবস্থা নয় হাজার যাত্রীবাহী ট্রেন পরিচালনা করে এবং প্রতিদিন দুই কোটি ৩০ লাখ যাত্রী বহন করে।