অপহরণের পর সোনাইমুড়ীর ছাত্রদল নেতাকে গুলি

 

অনলাইন ডেস্ক:

 

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার পৌর ছাত্রদলের সভাপতি শহিদ উল্যা লিটনকে (২৮) বাড়ির সামনে থেকে মাইক্রোবাসে করে তুলে নিয়ে গুলি করেছে দুর্বৃত্তরা। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে লিটনকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

শনিবার (০১ ডিসেম্বর) দিনগত রাত ১১টার দিকে কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার নোয়াখালীর সীমান্ত সংলগ্ন বিপুলাশর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

 

 

গুলিবিদ্ধ লিটন সোনাইমুড়ী পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড গোবিন্দপুর এলাকার মো. হানিফের ছেলে। তিনি সোনাইমুড়ি পৌর ছাত্রদলের সভাপতি।

সোনাইমুড়ী পৌর মেয়র ও পৌর বিএনপির সভাপতি মোতাহের হোসেন মানিক বাংলানিউজকে জানান, শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সিএনজি অটোরিকশায় করে বাজার থেকে গোবিন্দপুর এলাকায় বাড়ির সামনে গিয়ে নামে লিটন।

 

এসময় কোনো কিছু বুঝে উঠার আগে একদল দুর্বৃত্ত একটি মাইক্রোবাস নিয়ে পেছন থেকে লিটনকে তুলে নিয়ে যায়।পরে তারা লিটনের গায়ের শার্ট দিয়ে তার মুখ বেঁধে ফেলে। রাত ১১টার দিকে দুর্বৃত্তরা কুমিল্লা জেলার বিপুলাশর এলাকায় নিয়ে ব্যাপক মারধর ও নির্যাতন শেষে লিটনের ডান পায়ে গুলি করে মুখ বাঁধা অবস্থায় তাকে গাড়ি থেকে ফেলে দেয়।

 

পরে খবর পেয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তারা মুমূর্ষু অবস্থায় লিটনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। রোববার সকালে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

সোনাইমুড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসিম উদ্দিন জানান, বিষয়টি শুনেছি, আমার খোঁজখবর নিচ্ছি।