লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধিঃ

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের পূর্ব নির্ধারিত ইফতার পার্টিতে শ্লোগানকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংর্ঘষে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৭ নেতা কর্মী। এসময় উত্তেজিত ছাত্রলীগ কর্মীরা অনুষ্ঠানের প্রায় অর্ধশত চেয়ার ভাংচুর করে। আজ মঙ্গলবার রামগঞ্জ জিয়া অডিটোরিয়ামে সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে আজ মঙ্গলবার রামগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের ইফতার পার্টি পূর্বে আলোচনা সভা ও জেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির সভাপতি শাহাদাত হোসেন শরিফ ও সাধারন সম্পাদক জিয়াউল করীম নিশানকে সংবর্ধণা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

রামগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুল হাসান ফয়সাল মালের সভাপতিত্বে ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মেহেদী হাসান শুভোর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে জালাল হোসেন এক স্বেচ্ছাসেবকলীগ কর্মী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সফিক মাহমুদ পিন্টুর বিরুদ্ধে আপত্তিকর শ্লোগান দিলে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ জানালে জালাল হোসেন তেড়ে আসলে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা স্বেচ্ছাসেবকলীগ কর্মী জালালকে বেধম মারধর শুরু করলে সংর্ঘষের সূত্রপাত।

সংর্ঘষ ছড়িয়ে পড়লে উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ও ইছাপুর ইউনিয়ন ৯নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি রিয়াদ হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আহম্মেদ তানভীর, উপজেলা ছাত্রলীগের স্কুল বিষয়ক সম্পাদক ইমন হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা নাহিদ হোসেন ও মোঃ সাগর আহত হয়। আহতদের রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও রামগঞ্জ জনতা মা শিশু ও জেনারেল হসপিটালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এ ব্যপারে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুল হাসান ফয়সাল মাল জানান, এখানে বিএনপি ছাত্রদলের একটি গ্রুপ কৌশলে সংর্ঘষ বাঁধিয়ে ইফতার পার্টি নস্যাতের চেষ্টা চালিয়েছে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মেহেদী হাসান শুভ জানান, এখানে ছাত্রলীগের মধ্যে কোন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি। মূলত স্বেচ্চাসেবকলীগের একটি গ্রুপ অনুষ্ঠানের বাহিরে সংর্ঘষে জড়িয়ে পড়লে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়।