মন্ত্রিসভায় এগিয়ে চট্টগ্রাম, পিছিয়ে বরিশাল

 

বিজে২৪ নিউজ:

 

গঠিত হচ্ছে ৪৬ সদস্যের মন্ত্রিসভা। এ মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী ও ৩ জন উপমন্ত্রী থাকছেন।

বিভাগ অনুযায়ী হিসেব করলে দেখা যায়, সর্বোচ্চ মন্ত্রী করা হয়েছে চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে। তারপরেই রয়েছে ঢাকা বিভাগ।সিলেট ও রংপুর বিভাগ থেকে কাছাকাছি সংখ্যক মন্ত্রী করা হয়েছে।

 

 

অনেকটাই পিছিয়ে বরিশাল, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগ। বিভাগের হিসাবে দেখা গেছে অতীতে একাধিক মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী থাকা বিভাগগুলোতে এবার তেমন নেই।

রংপুর বিভাগ পেয়েছে ৩ জন মন্ত্রী ও ২ জন প্রতিমন্ত্রী। এর মধ্যে পঞ্চগড়ে রেলপথমন্ত্রী, লালমনিরহাটে সমাজকল্যাণমন্ত্রী, রংপুরে বাণিজ্যমন্ত্রী, দিনাজপুরে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী, কুড়িগ্রামে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী,

 

রাজশাহী বিভাগ ১ জন মন্ত্রী ও ২ জন প্রতিমন্ত্রী পেয়েছে। এর মধ্যে নওগাঁয়ে খাদ্যমন্ত্রী, রাজশাহীতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, নাটোরে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী।

 

খুলনা বিভাগ থেকে ৩ প্রতিমন্ত্রী ও ১ উপমন্ত্রী করা হয়েছে। এরমধ্যে মেহেরপুরে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী, যশোরে স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী, খুলনায় শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী, বাগেরহাটে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন উপমন্ত্রী।

 

এদিকে বরিশাল বিভাগ পেয়েছে একজন মন্ত্রী ও একজন প্রতিমন্ত্রী। এর মধ্যে পিরোজপুরে গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী এবং বরিশাল থেকে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী।

 

সিলেট বিভাগের ৪ জেলায়ই মন্ত্রী পেয়েছে। ৩ মন্ত্রী ও ২ প্রতিমন্ত্রী পেয়েছে বিভাগটি। সিলেটে জেলা থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা থেকে পরিকল্পনামন্ত্রী। মৌলভীবাজার থেকে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী। হবিগঞ্জ থেকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে।

 

 

ময়মনসিংহ বিভাগ পেয়েছে একজন মন্ত্রী ও ৪ জন প্রতিমন্ত্রী। ময়মনসিংহ জেলা থেকে সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ও সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে। নেত্রকোনা জেলা থেকে টেকনোক্র্যাট কোটায় করা হয়েছে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রী। একই জেলা থেকে করা হয়েছে মৎস ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী। জামালপুর থেকে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে।

 

চট্টগ্রাম বিভাগ পেয়েছে ৯ মন্ত্রী ও ১ উপমন্ত্রী। চট্টগ্রাম জেলা থেকে তথ্যমন্ত্রী, ভূমিমন্ত্রী, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী এবং শিক্ষা উপমন্ত্রী করা হয়েছে। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী করা হয়েছে বান্দরবান জেলা থেকে। নোয়াখালী থেকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী করা হয়েছে। চাঁদপুর জেলা থেকে শুধু শিক্ষামন্ত্রী করা হয়েছে। কুমিল্লা জেলা থেকে অর্থমন্ত্রী, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী করা হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে করা হয়েছে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী।

 

ঢাকা বিভাগ থেকে ৭ মন্ত্রী, ৫ প্রতিমন্ত্রী ও ১ উপমন্ত্রী করা হয়েছে। ঢাকা জেলা থেকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, শিল্প প্রতিমন্ত্রী, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে। মানিকগঞ্জ জেলা থেকে করা হয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী। গাজীপুর জেলা থেকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী এবং যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে।

 

টাঙ্গাইল জেলা থেকে করা হয়েছে কৃষিমন্ত্রী। নারায়ণগঞ্জ জেলা থেকে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী করা হয়েছে। নরসিংদী জেলা থেকে শিল্পমন্ত্রী করা হয়েছে। গোপালগঞ্জ থেকে টেকনোক্র্যাট কোটায় ধর্মবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে। শরীয়তপুর থেকে পানি সম্পদ উপমন্ত্রী করা হয়েছে।

 

বঙ্গভবনে সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টায় শপথ নেবে আওয়ামী লীগের নতুন সরকার। এর আগে রোববার বিকেলে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যদের নাম ঘোষণা করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। একই সঙ্গে তিনি কে কোন দফতর পাচ্ছেন তাও জানান।