নোয়াখালীর সেনবাগে গৃহবধু হত্যায় স্বামীসহ দুই ঘাতককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 

বিজে২৪ অপরাধ নিউজ:

 

নোয়াখালী সেনবাগ থেকে  ‍ফিরোজ আলম রিগানের পাঠানো  তথ্যচিত্রে একটি ডেস্ক রিপোর্ট:

 

সেনবাগের উত্তর রাজারাম পুরে যৌতুকের দাবীতে জাহেদা খাতুন (২০) নামে এক গৃহবধুকে হত্যার ঘটনায় স্বামী সোহেল (২৮) ও দেবর রুবেল(২৪) কে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

 

গোপনসংবাদেব ভিত্তিতে সেনবাগ থানার এসআই মাহফুজুর রহমান বৃহস্পতিবার ভোর ৫ টায় সোহেলকে ফেনীর ফুলগাজী ও রুবেলকে ট্রাংক রোড থেকে গ্রেফতার করেন।

 

উলেখ্য, গত ২৭ সেপ্টম্বর বৃৃহস্পতিবার উত্তর রাজারামপুর গ্রামের আবুল হোসেনের পুত্র রাতে গৃহবধু শাম্মির স্বামী সোহেল ও ভাসুর ওয়াসিমের নেতৃত্বে পাশবিক নির্যাতন শেষে গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসরোধ করে  গৃহবধুকে হত্যা করে। পরে ভোর ৫ টায় নিহত গৃহবধুর লাশ দাগনভূঁঞা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে রেখে স্বামী সোহেল ও ভাসুর ওয়াসিম পালিয়ে যায়।

 

খবর পেয়ে সেনবাগ থানার এসআই মাহফুজুর রহমান ওইদিন দুপুরে দাগনভূঁঞা থেকে লাশ উদ্ধার করেন। নিহত গৃহবধু বিজবাগ ইউপির বালিয়াকান্দি গ্রামের সাহাব উদ্দিনের কন্যা।

 

দুই বছর আগে তাদের বিয়ে হয় এবং ৫ মাস বয়সের ইশরাত জাহান মুনতাহা নামের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।নিহতের স্বজনরা জানান, বিয়ের পর থেকেই স্বামী সহ পরিবারের লোকজন যৌতুকের টাকা নিয়ে প্রায়ই মারধর করতো।

 

এ ঘটনায় মাম্মির চাচা আবদুল আউয়াল বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামীকরে সেনবাগ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যাকান্ডের পর থেকে আসামীরা ঘরে তালা লাগিয়ে পালিয়ে ছিলো।

 

সেনবাগ থানার ওসি মো: মিজানুর রহমান স্বামী সোহেল সহ দুই ঘাতকের গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে বিবিসি জার্নাল ২৪ ডটকম-কে বলেন, জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদেরকে নোয়াখালীর বিচারিক আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হবে।

 

 

                             বিজ্ঞাপন অংশ