কোচিং সেন্টার খোলা পেলেই ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে যাবে র‌্যাব

 

অনলাইন ডেস্ক:

 

র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেছেন, সরকারের নির্দেশনা অমান্য করে দেশের কোথাও কোচিং সেন্টার খোলা থাকলে সেগুলো বন্ধ করে দেয়া হবে। ঢাকা শহরের আনাচে কানাচে ছোট ছোট গলির ভেতর গার্মেন্টসের ভবনের পাশে অনেকে কোচিং সেন্টার পরিচালনা করছেন। আমরা যদি এ রকম তথ্য পাই তাহলে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে কোচিং সেন্টার বন্ধ করে দেব।

 

বুধবার রাজধানীর কারওয়ানবাজারে র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বাহিনীটির মহাপরিচালক এসব কথা বলেন।

 

এক প্রশ্নের জবাবে র‍্যাব মহাপরিচালক বলেন, প্রশ্নফাঁস রোধে ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে র‍্যাব, ২-১ দিনের মধ্যেই যার ফলাফল দেখা যাবে। যে কোন সরকারি পরীক্ষা এলেই প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। এ ধরনের অপচেষ্টা রোধে সরকার গৃহীত নানা পদক্ষেপের সঙ্গে র‍্যাবও যুক্ত হয়। সকলের সার্বিক তৎপরতায় গতবছর এ হুমকি নাস্যাৎ করতে পেরেছি। এবারো এ সংগ্রামে আমরা সামনে থাকবো।

 

তিনি বলেন, দেশবাসীর প্রতি আমার একটা আহ্বান আপনাদের কারও কাছে যদি এ ধরনের কোনো তথ্য থাকে তাহলে আমাদের একটা কল অথবা এসএমএস দিয়ে জানান। আমরা সেগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।

 

শিক্ষক, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানিয়ে র‌্যাব ডিজি বলেন, গতবছর কয়েকজন শিক্ষককে এ ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছিল, তাদেরকে আমরা শিক্ষক প্রতিনিধি বলে মনে করিনা। আশা করব এ ধরনের অপকর্মে শিক্ষকরা জড়িত হবেন না।

 

কোন ছাত্র-ছাত্রীও প্রশ্নফাঁসের পেছনে দৌঁড়াদৌঁড়ি করবেন না। গতবছরের মতো এবারো এ ধরনের অপপ্রয়াস দেখলে শিক্ষার্থীদের গ্রেফতার করা হবে। এর ফলে নবীন বয়সেই কারো ক্যারিয়ার ধ্বংস হয়ে যাক আমরা চাইনা।

 

প্রসঙ্গত, আগামী ২ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষা। ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এ পরীক্ষা চলবে। আর ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে ব্যবহারিক পরীক্ষা।

 

প্রশ্নফাঁস রোধে এবার ২৭ জানুয়ারি থেকে ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন শিক্ষামন্ত্রী।