প্রশ্ন ফাঁসের কোনও খবর পাওয়া যায়নি: শিক্ষামন্ত্রী

 

অনলাইন ডেস্ক:

 

সারাদেশে নকলমুক্ত পরীক্ষা আয়োজনে তীক্ষ্ম গোয়েন্দা নজরদারি বসানো হয়েছে। তাই কোনোভাবে প্রশ্নফাঁস করা সম্ভব নয় বলে দাবি করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

 

শনিবার রাজধানীর বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনের পর তিনি সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন।

 

তিনি বলেন, প্রশ্নফাঁস রোধে প্রশাসন শতর্ক আছে।প্রশ্ন ফাঁসের নামে যেন কোনও অসাধু চক্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়াতে না পারে সে বিষয়েও তৎপর রয়েছে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।মন্ত্রী বলেন, যারা পরীক্ষা দিচ্ছেন তারা আমাদের দেশের সম্পদ। নকল ও প্রশ্নফাঁস যেন না হয় তার জন্য আমরা নানা উদ্যোগ নিয়েছি। যারা যেমন শ্রম দেবে তারা তেমন ফলাফল করবে। শ্রম, যোগ্যতার সুনিশ্চিত করতে আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি।

 

পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে কেন্দ্রে প্রবেশ করে আসন গ্রহণ করে।  অনিবার্য কারণে কোনো পরীক্ষার্থী এরপর (পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে) কেন্দ্রে এলে রেজিস্ট্রারে নাম, ক্রমিক নম্বর ও বিলম্বের কারণ উল্লেখ করতে হবে। বিলম্বে আসা পরীক্ষার্থীদের তালিকা প্রতিদিন কেন্দ্র সচিব সংশ্লিষ্ট বোর্ডকে অবহিত করবে। যা শিক্ষা মন্ত্রণালয় এক পরিপত্রে জানিয়েছে।

 

দেশে তিন হাজার ৪৯৭টি কেন্দ্রে ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ শিক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। মোট শিক্ষার্থীর মধ্যে ১০ লাখ ৬৪ হাজার ৮৯২ জন ছাত্রী, ১০ লাখ ৭০ হাজার ৪৪১ জন ছাত্র রয়েছে। এ বছর ২৮ হাজার ৬৮২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। এছাড়া বিদেশের আটটি কেন্দ্রে ৪৩৪ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।