ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর প্রেসিডেন্ট: বার্নি স্যান্ডার্স

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

 

যুক্তরাষ্ট্রের ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য প্রচারণা শুরু করেছেন মার্কিন সিনেটর ও ডেমেক্রেট রাজনীতিবিদ বার্নি স্যান্ডার্স। কর্পোরেট মুনাফাবাদের বিরোধিতা করে এবং ‘রাজনৈতিক বিপ্লব’ ঘটানোর প্রত্যয় নিয়ে এই বর্ষীয়ান রাজনীতিক তার নির্বাচনী শুরু করেছেন।

 

নিউ ইয়র্কের ব্রুকলিনে এক বক্তব্য ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সাম্প্রতিক সময়ের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ‘সবচেয়ে ভয়ঙ্কর প্রেসিডেন্ট’ হিসেবেও উল্লেখ করেন স্যান্ডার্স।

 

ভারমন্টের ৭৭ বছর বয়সী স্বতন্ত্র সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেটদের হয়ে মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে হিলারি ক্লিনটনের কাছে হেরে গিয়েছিলেন। তবে এবার তিনি আরও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছেন।

 

এবার ডেমোক্রেটদের হয়ে প্রেসিডেন্ট মনোনয়ন পেতে আরও অন্তত ১০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করবেন।

 

এদের মধ্যে রয়েছেন ম্যাসাচুসেটসের সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন, নিউজার্সির সিনেটর কোরি বুকার ও স্যান অ্যান্টনিওর মেয়র হুলিয়ান ক্যাস্ত্রো।

 

প্রেসিডেন্ট হিসেবে ‘মানুষকে ঐক্যবদ্ধ’ করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে নিজের নির্বাচনী প্রচারণায় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন স্যান্ডার্স। এছাড়া করপোরেট মুনাফাবাদ, ধনিক শ্রেণি ও তাদের লোভকে প্রতিহত, সব মার্কিনির জন্য রাষ্ট্রীয় কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা প্রদান, ন্যূনতম মজুরি ৭.২৫ ডলার থেকে ১৫ ডলার করা, অভিবাসন নীতিতে পরিবর্তন, বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে বিনামূল্যে শিক্ষা, স্বাস্থ্যখাতের সংস্কারসহ ‘অর্থনৈতিক, সামাজিক, জাতিগত ও পরিবেশগত ন্যায়বিচার’ নিশ্চিত করার বিষয়টিতেও কাজ করবেন বলে তিনি অঙ্গীকার করেছেন।