ওবায়দুল কাদেরের কিডনিতে ‘ক্রিয়েটিনিন’র মাত্রা বেড়েছে

 

অনলাইন ডেস্ক:

 

সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কিডনিতে ‘ক্রিয়েটিনিনের’ মাত্রা বেড়েছে। ইনফেকশন’র উপস্থিতি পাওয়া গেছে রক্তে। এ সমস্যাগুলো নিয়ন্ত্রণে এলেই তার বাইপাস সার্জারি হবে।মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসকরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্ডিওলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. মো. হারিসুল হক।

 

তিনি আরও জানান, সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের সঙ্গে তাদের সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রয়েছে।ওবায়দুল কাদেরের কিডনিতে ক্রিয়েটিনিনের মাত্রা বৃদ্ধি এবং রক্তে ইনফেকশনের উপস্থিতি পাওয়া গেলেও তার শারীরিক অবস্থা উত্তরোত্তর উন্নতির দিকে। তিনি হাসপাতালটির আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাকে সেখানে ভেন্টিলেশনে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

 

হাসপাতালটির ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজি বিভাগের সিনিয়র কনসালট্যান্ট ও প্রিন্সিপাল ডাক্তার ফিলিপ কোহ’র নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে তিনি ব্রিফ করেন।তার বরাত দিয়ে কাদেরের সঙ্গে থাকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. আবু নাসের রিজভী বলেন, তার কিডনিতে সমস্যা ও শরীরে ইনফেকশন ধরা পড়েছে।

 

তারপরও অবস্থা আগের চেয়ে ভালো এবং উন্নতির দিকে। তাই ইনফেকশন দূর হলে আগামী সপ্তাহে বাইপাস করা হবে।‘ওবায়দুল কাদেরের কিডনিতেও সমস্যা ধরা পড়েছে। এ ছাড়া তার শরীরে ইনফেকশনও (সংক্রমণ) রয়েছে। তবে এসব রোগ জটিল পর্যায়ে নেই। কিডনির ডায়ালাইসিস করা লাগবে না।’সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার সকালে এসব তথ্য জানান আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।

 

এর আগে সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত ৮টার দিকে তাকে বহনকারী এয়ার অ্যাম্বুলেন্স সিঙ্গাপুর পৌঁছায় এবং ৮টা ৫০ মিনিটে ওবায়দুল কাদেরকে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালে নেয়ার পরই তাৎক্ষণিক চিকিৎসা শুরু করেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।হাসপাতালটির কার্ডিওলজি বিভাগের সিনিয়র কনসালট্যান্ট ও প্রিন্সিপাল ডাক্তার ফিলিপ কোহর তত্ত্বাবধানে ৩০০৮ নম্বর ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) তাকে ভর্তি করা হয়।

 

স্ত্রী ইসরাতুন্নেসা কাদের এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের নিউরোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. আবু নাসের রিজভী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন।উল্লেখ্য, রোববার সন্ধ্যা থেকেই সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের তিনজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক একটি এয়ার অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে ঢাকায় অবস্থান করছিলেন। গতকাল সোমবার দুপুরে আসেন ভারতের খ্যাতিমান হৃদেরাগ বিশেষজ্ঞ ডা. দেবীপ্রসাদ শেঠি। তিনিও বিশেষ বিমানে করে উড়ে এসে ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে হাসপাতালে যান এবং তার মতামত জানান। পরিবারের সদস্য ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা শেষে দেবীপ্রসাদ শেঠির পরামর্শে তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়।