যে দেশের প্রেসিডেন্টকে বলা হয় ‘জীবন্ত লাশ’

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

 

আলজেরিয়ার বর্তমান প্রেসিডেন্ট নিজের পঞ্চম মেয়াদের জন্য নির্বাচন করছেন। অথচ প্রেসিডেন্ট আব্দেল আজিজ বুতেফলিকাকে তার সমালোচকরা ‘জীবন্ত লাশ’ হিসেবে অভিহিত করেন।

 

আব্দেল আজিজ বুতেফলিকার বয়স এখন ৮২ বছর কিন্তু তিনি অবসর গ্রহণে ইচ্ছুক নন। যদিও ২০১৩ সালে স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে তিনি কার্যত পক্ষাঘাতগ্রস্ত।

 

এরপর থেকেই তাকে প্রকাশ্যে কোনও কথা বলতে শোনা যায়নি। যদিও প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার পঞ্চম মেয়াদের জন্য নির্বাচন করছেন তিনি।

 

আঞ্চলিক পর্যবেক্ষকদের মতে ১৮ এপ্রিলের ভোটে তিনি জিতেও যেতে পারেন। যদিও ২০ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকার পর শাসনক্ষমতা দীর্ঘায়িত করার চেষ্টার বিরুদ্ধে ক্ষোভও দেখা যাচ্ছে।

 

সারাদেশে লাখ লাখ মানুষ বিশেষ করে তরুণরা শুক্রবারও রাস্তায় নেমে এসেছিল অসুস্থ প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে অংশ নিতে।

 

আরব বসন্ত শুরু হওয়ার পর এটাকেই সবচেয়ে বড় প্রতিবাদ বলে মনে করা হচ্ছে এবং রাজধানী আলজিয়ার্সে পুলিশকে কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করতে হয়েছে। যদিও তাদের এসব প্রতিবাদ প্রেসিডেন্ট বুতেফলিকার কানে যায়নি।

 

তিনি প্রতিবাদকারীদের উদ্দেশ্যে কিছু বলেননি কারণ তিন সুইজারল্যান্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

 

দ্য লিভিং ডেড বা জীবন্ত লাশ

 

আব্দেল আজিজ বুতেফলিকার চরম সমালোচকরা তাকে ‘দ্য লিভিং ডেড’ বা জীবন্ত লাশ হিসেবে আখ্যায়িত করে থাকেন।

 

উত্তর আফ্রিকা বিশেষজ্ঞ ক্রিস্টিনা মাস বলেন, বিরোধীরা তাকে ‘দ্য ফ্রেম’-ও বলে থাকেন। কারণ অসুস্থতা ও কোনও অনুষ্ঠানে যোগ দিতে না পারা। এমনকি প্রার্থিতা ঘোষণার দিনসহ অনেক অনুষ্ঠানেই তার বাধাই করা ছবি রাখা হয়েছিল তার নিজের উপস্থিতির পরিবর্তে।

 

এমনকি তার অবস্থা নিয়ে এতোই অনিশ্চয়তা যে গত সোমবার প্যারিসে আলজেরিয়ার রাষ্ট্রদূতকে একটি বিবৃতি দিতে হয়েছিল যে প্রেসিডেন্ট এখনও জীবিত আছেন।